পাঞ্জাবি ছেঁড়া-হত্যার হুমকি: ২ ছাত্রলীগ নেতার পাল্টাপাল্টি মামলা

মুন্সিগঞ্জের সরকারি হরগঙ্গা কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি নিবিড় আহমেদের বিরুদ্ধে একই সংগঠনের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম রাব্বির পাঞ্জাবি ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অন্যদিকে রাব্বির বিরুদ্ধে হত্যার হুমকি ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অধ্যক্ষ ও তাকে নিয়ে কটূক্তির পাল্টা অভিযোগ করেছেন নিবিড় আহমেদ।

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় পাল্টাপাল্টি লিখিত অভিযোগ করেন তারা।

সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম রাব্বি বলেন, প্রসপেক্টাস বাবদ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ ২৫০ টাকা করে নিচ্ছে, যা অনেক বেশি। আমি এর প্রতিবাদ করছিলাম। এ সময় সভাপতি নিবিড় আহম্মেদ তার সহযোগী ফাহিম মিয়াজী, রুমি, মুন্না, ওমর ফারুকসহ কয়েকজন মিলে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর করে কলেজ থেকে বের করে দেন। তারা আমার পাঞ্জাবি ছিঁড়ে ফেলেন।

এ অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করে কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি নিবিড় আহম্মেদ বলেন, সকালে শিক্ষার্থীর সিরিয়াল মেনে কলেজের প্রসপেক্টাস সংগ্রহ করা হচ্ছিল। রাব্বি কয়েকজন ছেলে নিয়ে এসে শিক্ষার্থীদের ১০০ টাকার বিনিময় আগে সিরিয়াল দেওয়ার চেষ্টা করেন। আমরা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে মাস্ক ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করছিলাম। আগে সিরিয়াল দেওয়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে রাব্বির বিশৃঙ্খলা দেখে তা ছাড়াতে সেখানে যাই। কোনো মারামারির ঘটনা ঘটেনি। রাব্বি নিজেই তার পাঞ্জাবি ছিঁড়েছেন। তিনি ফেসবুকে কলেজ অধ্যক্ষ ও আমাকে নিয়ে কটূক্তি করেছেন এবং মিথ্যা হয়রানিমূলক কথা লিখেছেন।

এ বিষয়ে সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল হাই তালুকদার বলেন, প্রসপেক্টাস, ডিজিটাল আইডি কার্ড, বায়োমেট্রিক ফিঙ্গার প্রিন্ট ফিসহ বিবিধ বিষয় বাবদ ২৫০ টাকা রসিদ দেওয়া সাপেক্ষে নেওয়া হচ্ছে, যা বৈধ।

তিনি বলেন, সকালে কলেজের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা রাব্বি সাধারণ শিক্ষার্থীদের ফরম নিয়ে টানাহেঁচড়া করেছে। তারপর কলেজ গেটের বাইরে আওয়াজ শুনেছি, সেখানে তর্ক হয়েছে। তাই তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ডাকা হয়েছে।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, দুপক্ষের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরাফাত রায়হান সাকিব/জাগো নিউজ

Leave a Reply