নিজের ক্রয়কৃত জমিতে ঘর তুলতে পারছে না ইউসুফ

সিরাজদিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের বড়ই হাজী গ্রামের ঈশিতা দেশাই ও স্থানীয় প্রভাবশালীদেও বাধার কারণে নিজের ক্রয়কৃত জায়গায় ঘর তুলতে ও মেরামত করতে পারছে না। ঘর তুলতে ও মেরামত করতে না পাড়ায় জরার্জীর্ণ ভাঙা দোকান ঘড়েই থাকতে হচ্ছে তাকে। অসহায় ওই ব্যক্তির নাম মো. ইউসুফ বেপারী। সে সিরাজদিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের বড় শিকারপুর গ্রামের মৃত করম আলী বেপারীর ছেলে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, নিজের জায়গায় ঘর উত্তোলন ও মেরামত করতে না পেরে পরিবারটি মানবেতর জীবন যাপন করছে ভাঙা ঘরের সামনে দাঁড়িয়ে অসহায়ের মত সবাইকে তার কাগজপত্র দেখাচ্ছে।

ভুক্তভোগী মো. ইউসুফ আলী বেপারী জানান, ৩৪ নং জে এল এর বড়ৈহাজী মৌজার আর এস ৩০৯ নং দাগের বাড়ির ১৬ শতাংশ জায়গার আট শতাংশ গত ২৫/০৭/২০১৯ ইং তারিখে সুকলাল দেশাইয়ের মেয়ে সুকুমারী দেশাইয়ের থেকে আমার স্ত্রী ফরিদা বেগমের নামে ক্রয় করে সাবকব্লা রেজিস্ট্রি করে নামজারী করি। আমাদের নিকট সেই ক্রয়কৃত জমির দলিল ও নামাজারির পর্চা রয়েছে। আমার ভাগের আট শতাংশ জায়গায় ঘর তুলতে ও ভাঙা ঘর মেরামত করতে গেলে থানা পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়ে আমার কাজ বন্ধ করে দেয়।

এ বিষয়ে বড়ৈহাজী গ্রামের মৃত সুনীল দেশাইয়ের মেয়ে ঈশিতা দেশাই বলেন, মো. ইউসুফ বেপারী আমাদের দখলকৃত জায়গায় ঘর ওঠাচ্ছে তাই পুলিশের মাধ্যমে বাধা দিয়েছি।

সুকুমারী দেশাই বলেন, আমার জায়গা ঈশিতা ও তার স্বামীর অত্যাচারে আমি ইউসুফ আলীর স্ত্রী ফরিদা বেগমের কাছে বিক্রি করে দিয়েছি। ইউসুফ আমার জায়গা কিনে বৈধভাবে ঘর তুলছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মুরাদ শেখ, রবিন গমেজ বলেন, দের বছর র্পূবে এই জমি ইউসুফ আলী বেপারী তার স্ত্রী ফরিদা বেগমের নামে কিনেছেন এটা আমরা জানি।

কেয়াইন ৫ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য নয়ন রোজারিও বলেন, শুনেছি সুকুমারী দেশাই থেকে এই জমি ইউসুফ আলী স্ত্রীর নামে ক্রয় করেছে।

এ বিষয়ে কেয়াইন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আশ্রাফ আলী বলেন, গতকাল ঘর তুলতে বাধাঁ দেয়ার কথা আমাকে ইউসুফ জানিয়েছে।

নিউজজি

Leave a Reply