জাপান , জরুরী অবস্থা প্রত্যাহারের ঘোষণা ।

রাহমান মনি / প্রধানমন্ত্রীর অফিস: করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে ইতোপূর্বে ঘোষিত টোকিও সহ ঊনিশটি প্রিফেকচারে জারি করা জরুরী অবস্থা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে জাপান। চলমান জরুরী অবস্থার নিদিষ্ট মেয়াদ শেষ হ’বার পরই প্রত্যাহার করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধান মন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা । বর্তমানে দেশটিতে ১৯টি প্রিফেকচারে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জরুরী অবস্থা বহাল রয়েছে ।

আজ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ইয়োশিহিদে সুগা তার কার্যালয়ে ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে এ জরুরি অবস্থা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। আগামী ১ অক্টোবর থেকে এ ঘোষণা কার্যকর হবে বলে সুগা বলেন । জরুরী অবস্থা প্রত্যাহার করা হলেও এসব এলাকা বিশেষ নজরদারির আওতায় রাখা হবে বলে সুগা উল্লেখ করেন

আজ কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক গঠিত করোনাভাইরাস উপকমিটির সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনার পর এই সিদ্ধান্তের কথা জানান সুগা । চলমান ১৯টি প্রিফেকচারের কেউই জরুরী অবস্থা বাড়ানোর সুপারিশ করেননি বলে সুগা উল্লেখ করেন।

প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা জনগণের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, ‘জনগণের সহযোগিতায় করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না এলেও অদূরেই আমরা অনেকটাই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবো’ । তবে , সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে এবং অযথা সমবেত হওয়া থেকে বিরত থেকে যথা সম্ভব ঘরে অবস্থান করতে হবে ।

সুগা বলেন, দেশটিতে ১জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ২লাখ ৩৯ হাজার সনাক্ত এবং মৃত্যু ৫হাজার ৭০০ । মৃত্যুর হার ২.৪% । এপ্রিল থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত সনাক্তের সংখ্যা ৩ লাখ ২৪ হাজার এবং মৃত্যু ৫ হাজার ৭১৭ । মৃত্যুর হার ১.৭% । ১ জুলাই থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সনাক্ত ৮ লাখ ৯৪ হাজার এবং মৃত্যু ২ হাজার ৭২৮ জন। মৃত্যুর হার ০.৩% । মৃত্যুর কমানো সম্ভব হয়েছে সকলের সম্মিলিত নিরলস প্রচেষ্টায় । এই জন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান সুগা ।

২৬সেপ্টেম্বর রোববার একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানের সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী নোরিহিসা তামুরা এমাসের শেষ জরুরী অবস্থা তুলে নেয়ার ইঙ্গিত দিয়ে বলেছিলেন চলমান জরুরী অবস্থা মেয়াদ শেষে তুলে নিতে সক্ষম হ’ব ।

এদিকে গত সপ্তাহে, ভ্যক্সিন প্রদান সমন্বয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী তারো কোনো ঘোষণা করেছিল যে, বছরের শেষ নাগাদ প্রথমে চিকিৎসা কর্মীদের এবং নতুন বছরের শুরুর দিকে প্রথমে বয়স্কদের এবং পর্যায়ক্রমে সকলকে কোভিড-১৯ বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু করা হবে ।

গতকাল (২৭ সেপ্টেম্বর) সোমবার পর্যন্ত মোট জনসংখ্যার ৫২% দুই ডোজ করে ভ্যক্সিন প্রদান সম্পন্ন হয়েছে। ১ ডোজ করে প্রায় ৭০% ।

আজ টোকিওতে ২৪৮ জন সহ জাপান জুড়ে মোট ১ হাজার ১৪৭ জন নতুন করে করোনা সনাক্ত করা হয়।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ এবং মৃত্যুর সংখ্যা ১৭ হাজার ৫০০ ছাড়িয়েছে । সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেয়েছেন ১৬ লাখ ৩৮ হাজার ৬৩৩ জন ।

rahmanmoni@gmail.com

Leave a Reply