মুন্সীগঞ্জে উত্তর কামারগাঁওয়ে সরকারি গাছ কর্তন

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলা ভাগ্যকুল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের উত্তর কামারগাঁওয়ে সরকারি রাস্তা ও খাল পাড়ের গাছ কর্তন করা হয়েছে। ৪টি কড়ই গাছ কর্তনের অভিযোগ ওই এলাকার আফছু মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। কর্তনকৃত গাছের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এর আগে স্থানীয় ভূমি অফিস নয়াবাড়ি খালে অবৈধ স্থাপনা তুলে নেওয়ার মাইকিং করা হয়। এই সুযোগে নামে মাত্র ৩২ হাজার টাকা মূল্যে গাছগুলো বিক্রি করে দেয় জহিরুল ইসলাম।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কামারগাঁও পাকা ব্রিজের সামান্য পশ্চিম পাশে খালের উত্তর পাড় সংলগ্ন সরকারি রাস্তার পাশে মোট ৪টি গাছ কাটা হয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, গত ৪/৫ দিন আগে গাছগুলো কাটা হয়। কর্তনকৃত গাছ কিনে নেন একই এলাকার স’মিলের মালিক রফিক।

জানা যায়, এরই মধ্যে স্থানীয় ভূমি খাল থেকে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য ঘোষনা দিলে রাস্তা সংলগ্ন খাল পাড়ে অনেকেই বিভিন্ন কৌশলে গাছ কেটে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

এ সময় গাছ কর্তনকারী জহিরুল ইসলামের কাছে জানাতে চাইলে তিনি দাবী করে বলেন তাদের ব্যক্তিগত জায়গার গাছ কেটেছেন। ব্যক্তিগত জায়গা হলে খালে ময়লার টাংকি সরিয়ে নিচ্ছেন কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন সরকার মাইকিং করেছে তাই। তিনি এর বেশী কিছু বলতে চাননি।

ভাগ্যকুলের উপ সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান জানান, আমি অবগত নই। সরেজমিনে গিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শ্রীনগর উপজেলা বন বিভাগ কর্মকর্তা মো. সেলিম জানান, আপনাদের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। সরকারি জায়গার গাছ বিনা অনুমোতিতে কাটা অন্যায়। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply