মাসে কিস্তি ৩০ হাজার টাকা, নিজেকে শেষ করে দিলেন যুবক

মুন্সিগঞ্জে সদর উপজেলায় মো. সেলিম হোসেন (২৮) নামে এক ঋণগ্রস্ত যুবক আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলা পঞ্চসার ইউনিয়নের মিরেশ্বরাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।‌

নিহত সেলিম হোসেন ওই গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে। জুমার নামাজ পর নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। তার মা পাশের ঘর থেকে এসে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সেলিমের এক বছরের একটি সন্তান রয়েছে।

নিহত সেলিমের প্রতিবেশী মামুন ঢাকা পোস্টেকে বলেন, এক বছর যাবত বিভিন্ন দুরারোগ্য রোগে ভুগছিল‌ সেলিম। রোগাক্রান্ত থাকায় সে কোনো কাজকর্ম করতে পারত না। ফলে পরিবারের ব্যয় নির্বাহ করতে পারত না। নিজে অসুস্থ থাকায় ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া করতে পারত না । এমনকি দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে, বসে, শুয়েও কোমরের ব্যথায় স্থির হয়ে থাকতে পারত না। নিজের চিকিৎসা করাতে সে অনেক টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ে। সপ্তাহে প্রায় ৭-৮ হাজার টাকা তাকে এনজিওর কিস্তির ঋণ পরিশোধ করতে হয়। এসব কষ্টে হয়তো সে আত্মহত্যা করেছে।

স্থানীয়রা জানান, সেলিম আগে সুতার মিলে দিনমজুরের কাজ করতেন। এরও আগে তিনি ভ্যান গাড়িতে করে সবজি বিক্রি করতেন। প্রায় এক বছর যাবত তিনি জটিল কোমরের ব্যথাসহ অন্যান্য রোগে ভুগছিলেন। চিকিৎসা করাতে অনেক টাকা ঋণ হয়ে যান। যার কিস্তি দাঁড়ায় প্রতি মাসে প্রায় ৩০ হাজার টাকা। এতো টাকা পরিশোধ করতে না পেরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

এ ব্যাপারে পঞ্চসার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা জানান, সেলিমের কিস্তির ব্যাপারে তিনি জানেন না। তবে সেলিম আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহ দাফন করা হবে।

মুন্সিগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুবকর সিদ্দিক বলেন, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে সেলিমের মরদেহ পায়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক ঝামেলা ও ঋণের কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে এটি আসলেই আত্মহত্যা কিনা তা জানার জন্য মরদেহ ময়নাতদন্ত করা হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের ফলাফলের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব.ম শামীম/ঢাকা পোষ্ট

Leave a Reply