টঙ্গীবাড়ী‌ বাজার রোড হকারদের দখলে ফুটপাত, ভোগন্তি চরমে

মৃন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী উপ‌জেলার টঙ্গীবাড়ী বাজা‌র রোড়ের প্রতিটাই রাস্তায় হকাররা দখল করে নিয়েছেন ফুটপাতগুলো। শুধু ফুটপাত নয়, টঙ্গীবাড়ীর ব্যস্ততম সড়কগুলো দখল করেও চলছে তাদের রমরমা ব্যবসা।

ট্ঙ্গীবাড়ী ,বা‌লিগাও ,বেতকা, বিভিন্ন সড়কে এ চিত্র দেখা গেছে। ফুটপাত দখলে নেয়ায় অনেক স্থানেই সংকুচিত হয়েছে মানুষের চলার পথ। বাড়ছে যানজট। কোথাও কোথাও অবৈধ স্থাপনা কিংবা বিভিন্ন মালামাল রেখে দেয়ায় বিড়ম্বনায় পড়ছেন পথচারীরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন,টঙ্গীবাড়ীর ফুটপাতে হকারদের রাজত্বের নেপথ্যে রয়েছে প্রভাবশালীদের চাঁদাবাজি। দোকান ভেদে ১০০ টাকা থেকে শুরু করে দৈনিক ৫০০ টাকা পর্যন্ত মাসোহারা দিতে হয় হকারদের।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, টঙ্গীবাড়ী ব‌্যাস্ততম রাস্তার দু’পাশের ফুটপাত দখল করে পসরা বসিয়েছে হকাররা। এমনভাবে তারা ফুটপাত দখল নিয়েছে, যেখানে পথচারীদের বাধ্য হয়ে ধীরগতিতে হাঁটতে হচ্ছে। ফলে কোনভাবেই শারীরিক দূরত্ব মেনে চলা সম্ভব হচ্ছে না। ফুটপাত ছাড়াও কোথাও কোথাও আবার সড়ক দখল করে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে রাস্তা সংকুচিত হয়ে পড়ছে, বাড়ছে যানজট।

স্থানীয়রা জানান, টঙ্গীবাড়ী বাজার ,ক‌লেজ রোড,থানা রোড‌ এলাকায় মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের প্রায় সবই পাওয়া যায় এখানে। আর এ কারণেই রাস্তা, ফুটপাত সবই ঢাকা পড়েছে দোকান, গ্যারেজ, আর পার্কিং করে রাখা যানবাহনে।

এছাড়া, মেইন সড়কে বিভিন্ন রুটের পরিবহনগুলো পার্কিং করে রাখা হয়। আর সেখান থেকেই পর্যায়ক্রমে একটা করে বাস যাত্রী ভর্তি করে ছেড়ে যায়। এতে ছোটবড় সব পরিবহনের চাপ বাড়ছে মূল সড়কে। ফলে যানজটের মাত্রাও বেড়েছে কয়েক গুণ।

স্থানীয়দের দাবি, এখানে কয়েকটি বড় মার্কেট হওয়ায় মানুষের চাপও বেশি। এর উপর আবার রাস্তা দখল করে হকারদের অস্থায়ী দোকানের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এতে মানুষ হাঁটলেও যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

ফুটপাতের হকাররা সড়কের পুরো অংশ দখল করে ব্যবসা পেতে বসেন। সড়কের উপর দোকান, সড়ক বিভাজকের উপর দোকান, পাশের ফুটপাতেও দোকান। সর্বত্রই হকারদের নানা পণ্যের পসরা।

স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,টঙ্গীবাড়ী ফুটপাত ও রাস্তা সোনার চেয়েও দামি। এখানে ১০ বর্গফুট রাস্তার একাংশের দৈনিক ভাড়া ৫০০ টাকা। ফুটপাতের ভাড়া আরো বেশি। হকার ও ফুটপাত ব্যবসায়ীদের রাস্তায় পণ্য বিক্রির সুযোগ দিয়ে ভাড়া আদায় করা হয়।

গ্রামনগর বার্তা

Leave a Reply