সিরাজদিখানে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীকে (৮) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক কিশোরের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত কিশোরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

শুক্রবার দুপুরে ফৌনপুর থেকে ধর্ষক জিহাদ হোসেনকে (১৫) মুন্সীগঞ্জ আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

জিহাদ উপজেলার শেখের নগর ইউনিয়নের ফৈনপুর পশ্চিমহাটি গ্রামের মো: জুয়েল মিয়ার ছেলে।

ভুক্তভোগী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। সে স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় জিহাদ তার প্রতিবেশী ভুক্তভোগী শিশুকে তাদের ঘরে নিয়ে যায়। পরে জিহাদ তাকে ঘরের মধ্যে রেখে বাইরে থেকে ঘরের দরজায় তালা মেরে জানালা দিয়ে আবার প্রবেশ করে। পরে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি কাউকে না বলার কথা বলে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। বাড়িতে এসে ভুক্তভোগী অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। ভিকটিম মায়ের কাছে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় জিহাদ হোসেনকে ফৈনপুর তার মামার বাড়ি থেকে আটক করে। পরে শেখেরনগর পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জিহাদকে গ্রেফতার করে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা সিরাজদিখান থানায় অভিযোগ করলে সিরাজদিখান থানায় অভিযোগটি মামলায় রুজু করা হয়।

এ ব্যাপারে সিরাজদিখান থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একে এম মিজানুল বলেন, ঘটনার পরপরই ওই ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে মুন্সীগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নয়া দিগন্ত

Leave a Reply