মাকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কন্যাকে অপহরণ ও ধর্ষণ, লম্পট গ্রেপ্তার

উপজেলায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে ওই গৃহবধূর নাবালিকা কন্যাকে অপহরণ ও ধর্ষণের ঘটনায় বাবুল বেপারী (৪০) নামে এক লম্পট। পরে র‌্যাবের সহযোগীতায় এই লম্পটকে গ্রেপ্তার করেছে শ্রীনগর থানা পুলিশ। এ সময় গৃহবধূর মাদ্রাসা পড়ুয়া ১৪ বছরের কন্যাকে উদ্ধার করা হয়।

এর আগে উপজেলার কুকুটিয়া বাজারের পাশে পুর্ব পাড়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামী বাবুল বেপারী গত ১৫ সেপ্টেম্বর সুকৌশলে বাদীর নাবালিকা কন্যাকে অপহরণ করে। প্রায় ২৪ দিন পর গত শনিবার রাতে গাজিপুরের কোনাবাড়ি এলাকা থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সদস্যরা আসামী বাবুল বেপারীকে গ্রেপ্তার করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন শ্রীনগর থানার ওসি মো.আমিনুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আসামীকে মুন্সিগঞ্জ কোর্টে ও ভিকটিমকে পরিক্ষার জন্য মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বাবুল বেপারীর বিরুদ্ধে নাবালিকা কন্যা অপহরণ ও ধর্ষণের ঘটনায় শ্রীনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গত রোববার মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং- ৯।

উল্লেখ্য, গত ১৩ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে বাবুল বেপারী জোরপূর্বক বসতঘরে ঢুকে ওই ছাত্রীর মাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ধস্তাধস্তির এক পর্যায় গৃহবধূর ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে লম্পট বাবুল বেপারীকে আটকে রাখার চেষ্টা করলে বাবুল বেপারী তার পরনের লুঙ্গি, সেন্ডেল ও একটি বিশেষ স্প্রে ফেলে পালিয়ে যায়। ঘটনার পরদিন ওই গৃহবধূ বাদি হয়ে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং-২৮। এর ৪ দিন পর গৃহবধূর নাবালিকা কন্যা মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরা পথে বাবুল বেপারী জোরপূর্বক একটি প্রাইভেটকারে করে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে তার পরিবার শ্রীনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী দায়ের করে। জিডি নং-২৯৫।

গত শনিবার রাতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে গাজিপুর কোনাবাড়ি এলাকা থেকে আসামী বাবুল বেপারীকে গ্রেপ্তার করে ও একটি বাড়ির বদ্ধ কক্ষ থেকে গৃহবধূর নাবালিকা কন্যাকে উদ্ধার করে শ্রীনগর থানায় হস্তান্তর করেন। লম্পট বাবুল বেপারী দীর্ঘদিন মালয়েশিয়া ছিল। সে এলাকায় আইপিএল জুয়ারী হিসেবে পরিচিত। বাবুল বেপারী কুকুটিয়া গ্রামের পুর্ব পাড়ার মৃত হযরত আলী বেপারীর ছেলে।

নিউজজি

Leave a Reply