মুন্সিগঞ্জে অস্তিত্ব সংকটে রামশিংয়ের খাল

মাহবুব আলম জয়: সদর উপজেলার রামশিং খালে অপরিকল্পিত বাঁধ আর স্রোতের গতিপথ বদলে যাওয়ার কারণে এখন শুকিয়ে যাচ্ছে খালটি। একই সাথে শুকিয়ে যাওয়া খাল দখলেও এলাকার ভূমিদস্যু ও প্রভাবশালীদের প্রতিযোগিতা চলছে সমানতালে। ফলে খালটি এখন অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। বর্তমানে জোয়ার-ভাটার প্রবাহ না থাকায় এ খালের অবস্থা করুণ। ধীরে ধীরে সঙ্কুচিত হয়ে আসছে রামশিং খাল।

সরেজমিনে দেখা যায়, খালে বিভিন্ন বাড়ি বর্জ্য ফেলে খালটি ভরাটে দিকে নেয়া হচ্ছে। দীর্ঘদিনে এক কাজ করায় এখন খাল দিয়ে পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। শুকিয়ে অস্তিত্ব হারাতে বসেছে এ খাল।

স্থানীয়রা জানান, এ উপজেলার কৃষি, ব্যবসা-বাণিজ্য নির্ভর করত এসব প্রবাহমান খালে ওপর। কিন্তু কালের পরিবর্তনে আজ অস্তিত্ব সংকটের মুখে পড়েছে এ এলাকার জলাভূমি রামশিংয়ের খাল। এ সংকট রোধে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ ও সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন।

বজ্রযোগীনি ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. মনিরুজ্জামান নান্নু বলেন, রামশিংয়ের এ খালটি একটি ঐতিহ্যবাহী খাল। খালের পানি সরবরাহ বর্তমানে অনেকটা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এটি দ্রুত খনন করা প্রয়োজন। উপজেলায় প্রশাসনের মিটিং বিষয়টি অবহিত করেছি।

বজ্রযোগিনী ইউপি চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, আমি রামশিংয়ের খালটি সরেজমিনে গিয়ে দেখেছি। যদি কোন কেউ দখল করে থাকে এটি দখলদার থেকে উচ্ছেদের ব্যবস্থা করে খালের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের সাথে কথা বলে খালটি খননের ব্যবস্থা করা হবে।

নিউজজি

Leave a Reply