মুন্সিগঞ্জে ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে গুলি-কুপিয়ে জখম

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে মাইক্রোবাসে তুলে জিয়া সরকার (৪৫) নামের এক ইট-বালু ব্যবসায়ীকে গুলি ও কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে শিপন পাটোয়ারী নামের এক ইউনিয়ন যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত শিপন সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারীর ছোট ভাই।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বেশনাল এলাকা থেকে ডিবি পরিচয়ে তাকে মাইক্রোবাসে তুলে নেওয়া হয়। পরে তার পায়ে গুলি ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে সদর উপজেলার চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দি ইউনিয়নে আমঘাটায় ফেলে রাখা হয়।

আহত জিয়া সরকার সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের নোয়াদ্ধা গ্রামের জেদ্দাল সরকারের ছেলে। তিনি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মহসিন হক কল্পনার সর্মথক। গুরুতর অবস্থায় তাকে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত জিয়া সরকারের স্বজনরা জানান, দুপুরে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার যশলং ইউনিয়নের সেরাজাবাদ এলাকায় নিজ ইট-বালু ব্যবসার দোকান বন্ধ করে মেয়েকে স্কুল থেকে আনতে যান জিয়া। বেশনাল কালভার্টের কাছে পৌঁছালে যুবলীগের সভাপতি শিপন পাটোয়ারী, তার সহযোগী সোহাগ, মোসলেম, দিলদারসহ ১০-১২ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাকে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে রিপন চেয়ারম্যানের গ্রামের বাড়ি আমঘাটায় নিয়ে যান। সেখানে নিয়ে পায়ে গুলি ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রাখা হয়।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে শিপন পাটোয়ারীর মোবাইলে একাধিকবার কল দিলে তিনি কেটে দেন।

মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শৈবাল বসাক বলেন, ওই ব্যক্তির শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রে আঘাত রয়েছে। পায়ে দুটি গুলি করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. আনসারুজ্জামান বলেন, সন্ধ্যা পর্যন্ত এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে ঘটনা শোনার পর ফোর্স ও ডিবি পুলিশ চরাঞ্চলে অভিযান চালাচ্ছে।

আরাফাত রায়হান সাকিব/এসআর/এমএস

Leave a Reply