এক খামারেই সাড়ে ৫শ’ ষাঁড়

​​​​​​​মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বলঃ মুন্সীগঞ্জের ‘বস’। দাবি করা হচ্ছে এবারের কোরবানির ঈদে দেশে বেলজিয়াম ব্লু জাতের একমাত্র ষাঁড়। এক টন ওজনের ষাঁড়টির দাম হাঁকা হচ্ছে ২৫ লাখ টাকা। জেলার একটি খামারেই এমন হরেকরকমের সাড়ে ৫শ’ ষাঁড়, বিরল মহিষ এবং তিন হাজার ভেড়া-ছাগল রয়েছে। খামারটিতে অর্ধশত কোটি টাকার পশু বিক্রির টার্গেট এবার।

‘বস’, বেলজিয়ামব্লু জাতের ষাঁড়। ২৩ মাসেই এর ওজন দাঁড়িয়েছে প্রায় এক টন। ষাঁড়টি জন্ম নেয় এ খামারেই। জন্মের পর থেকেই পরম যত্নে লালনপালন করা হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়া থেকে বিমানে উড়ে বাংলাদেশে এসেছিল তার মা। আরও রয়েছে পাকিস্তানিশাহী-ওয়াল জাতের ১১শ’ কেজির রাজাবিক্রমপুর ও বীরবিক্রমপুর। প্রতিটি দাম ২০ লাখ করে। আমেরিকান ব্ল্যাক অ্যাংগাস

লৌহজংয়ের সাতঘরিয়ায় ডাচ খামারে লালন-পালন করা গরু

জাতের ষাঁড়টিও নান্দনিক। খামারটির জৌলুস ছাড়াচ্ছে নজর কাড়া জাতের নানা ষাঁড়। রয়েছে ব্রাজিলের ঘির, ইতালির চীনানিয়ান, ভুটানের ভুট্টি, নেপালের গির, ইউরোপীয় লিমোজিন, ষাঁড়লক। বাংলাদেশের দেশাল, রেডচিটাগাং ও মিরকাদিমের ধবলগাই। মুন্সীগঞ্জের ভ্যাটেরিনারি অফিসার ডা. মাহমুদুল হাসান বলেন, খামারটিতে গরু লালনপালন করা হয় সম্পূর্ণ উন্মুক্ত পরিবেশে। গরুগুলো পর্যাপ্ত আলো-বাতাস পাচ্ছে, ফলে পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি উৎপন্ন হচ্ছে।

ডাচ ডেইরি ফার্মের ভ্যাটেরিনারি সার্জন ডা. মোস্তফা কামাল বলেন, ষাঁড়গুলোর ওজন ১৫০ কেজি থেকে ১১শ’ কেজি পর্যন্ত। দাম হাঁকা হচ্ছে ৭৮ হাজার থেকে ১২ লাখ টাকা পর্যন্ত। এ খামারে কোরবানির জন্য দেশি-বিদেশি ১০ প্রজাতির সাড়ে ৫শ’ ষাঁড়, ২৬টি মহিষ, দুই হাজার ভেড়া ও সহস্রাধিক ছাগল লালনপালন করা হয় উন্মুক্ত পদ্ধতিতে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply