তিন ব্যবসায়িক পার্টনার মিলে খুন করে সৌদি প্রবাসীকে

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে তিন ‌ব্যবসায়ী পার্টনার মিলে খুন করে সৌদি প্রবাসীকে। এ ঘটনায় ৬ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হলে বেরিয়ে আসে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মাহাবুব হোসেন(২৭), আরিফ (৪২), হাবিবুল্লাহ (৪৫), মোজাম্মেল হক (৬০), মনির (৪০), আক্কাস আলী(৬৫)।

সিরাজদিখান থানার ওসি মো. মুজাহিদুল ইসলাম জানান, সৌদি আরব থেকে দেশে এসে জমি বেচাকেনার কাজ করতেন নিহত মুজিবুর রহমান (৪৫)। তিনি উপজেলার চরপানিয়া গ্রামের মৃত সহর আলীর ছেলে। গত ১০মার্চ সকালে সরকার বাড়ির বিলে হাবিব সরকারের ঘাসের ক্ষেতে মুজিবুরের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা। পরবর্তীতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়। হত্যার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে রহস্য উন্মোচন ও অভিযুক্ত ছয়জনকেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রথমে মাহাবুব হোসেন, আরিফ ও হাবিবুল্লাহকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মূল আসামিকে মানিকগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হত্যার কথা স্বীকার করে মুন্সীগঞ্জ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

অভিযুক্তদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে ওসি জানান, প্রায় একমাস আগে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার আনারকলি অফিসে নিহত মজিবুর রহমানের ব্যবসায়িক পার্টনার হাবিবুল্লাহ, আরেফিন ও পিয়ার মিলে হত্যার পরিকল্পনা করে। এ সময় মাহাবুব হোসেন বাইরে থেকে তাদের পরিকল্পনা শুনে ফেলে। পরে মাহাবুবকে তারা প্রস্তাব দেয়- পঞ্চাশ হাজার টাকা দেবে।

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী— গত‌ ৯ মার্চ রাতে হাবিবুল্লাহ মাহাবুবকে একটি ব্যাগে দুটি চাইনিজ কুড়াল দিয়ে নবধারা হাউজিংয়ে গিয়ে অপেক্ষা করতে বলে। মাহাবুব তাদের কথামতো সন্ধ্যা ৭টা থেকে অপেক্ষা করতে থাকে। পরবর্তীতে হাবিবুল্লাহ, আরেফিন ও পিয়ার নিহত মুজিবকে সঙ্গে নিয়ে রাত ১০টার দিকে সিসিক্যামেরা এড়িয়ে সরকার সিটির ভেতর দিয়ে একটি জমিতে নিয়ে যায়। সেখানে হাবিবুল্লাহ, আরেফিন ও পিয়ার মিলে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। এতে ঘটনাস্থলেই মুজিবুরের মৃত্যু হয়।

ব.ম শামীম/এমজে

Leave a Reply