টঙ্গীবাড়ীতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, দুই বন্ধু আটক

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার খলাগাঁও গ্রামে সরিষা ভাঙানোর মিলে নিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে পালাক্রমে ধর্ষণ ও মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণের অভিযোগে জিহাদ (১৯) ও সিয়াম ( ১৮) নামে দুই বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ।

আটক জিহাদ টঙ্গীবাড়ি উপজেলার খলাগাঁও গ্রামের মনির ব্যাপারীর ছেলে ও সিয়াম একই উপজেলার উত্তর হাসাইল গ্রামের শাহজাহান খালাসীর ছেলে।

টঙ্গীবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা সোয়েব আলী জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, টঙ্গীবাড়ীর পাচগাও ওয়াহিদ আলী দেওয়ান আলিয়া মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর সাথে বিগত প্রায় দুই মাস ধরে ভয়ভীতি দেখিয়ে জিহাদ ও সিয়াম জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে।

ওসি আরও জানান, গত ঈদুল ফিতরের ৪ দিন পরে সন্ধ্যার দিকে জিহাদ আর সিয়াম মিলে এই মাদ্রাসা ছাত্রীকে টঙ্গীবাড়ী খলাগাঁও এলাকার রাস্তার পাশের সরিষা ভাঙানোর মিলে নিয়ে প্রথমে সিয়াম ধর্ষণ করে। পরে সিয়ামের বন্ধু জিহাদ ধর্ষণ করলে সিয়াম মুঠো ফোনে ভিডিও ধারণ করে। পরে সিয়াম তার মোবাইলে ধারণ করা ভিডিও ডিভাইসের মাধ্যমে অন্য একটি মোবাইলে হস্তান্তর করলে তা ধর্ষিতার মায়ের নজরে আসে। এই ঘটনায় ভিকটিমের মা রোববার (১২ মে) বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করে। সোমবার (১৩ মে) সন্ধ্যা ৬ টার দিকে হাসাইল এলাকা হতে ওই দুই বন্ধুকে আটক করে পুলিশ। আজ (মঙ্গলবার) মামলা রুজু করে আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

টঙ্গীবাড়ী থানা এসআই আল মামুন বলেন, ভিকটিমের মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে দুই আসামিকে আটক করা হয়েছে। তাদের মুঠোফোন জব্দ করে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র পাওয়া গেছে।

রাইজিংবিডি

Leave a Reply