সিরাজদিখানে সহপাঠীর উত্ত্যক্তে আত্মহত্যা কিশোরীর

মঙ্গলবার বিকালে সিরাজদিখান মধ্যপাড়া ইউনিয়নের তেলীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত ইন্তেজা আক্তার অন্তু ওই গ্রামের দেলোয়ার শেখের দ্বিতীয় মেয়ে।

পুলিশ ও মৃতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কিশোরী অন্তু মালপদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। অন্তুকে স্কুলের সহপাঠী একই ক্লাসের সিয়াম প্রায়ই উত্ত্যক্ত করে। এর কোনো প্রতিকার না পাওয়ায় সে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। একপর্যায়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল।

মঙ্গলবার বিকালে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে নিজ ঘরে ওড়না দিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে অন্তু। এমতাবস্থায় তার (অন্তু) মা বর্ণা বেগম দেখে ফেললে প্রথমে তাকে চিকিৎসার জন্য সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে বুধবার চিকিৎসারত অবস্থায় ইন্তেজা আক্তার অন্তু মারা যায়।

মৃত ইন্তেজা আক্তার অন্তুর বাবা দেলোয়ার সেখ ও মামা মাহবুব হাসান বলেন, লৌহজং উপজেলার ঘাসভোগ গ্রামের তিলাল হাওলাদারের ছেলে সিয়াম আমার মেয়ের সঙ্গে মালপদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে একই সঙ্গে পড়ত। সিয়াম প্রায়ই অন্তুকে উত্ত্যক্ত করত কিন্তু বাড়িতে এসে আমাদের কিছুই জানাত না অন্তু। সিয়ামের কারণেই আমার মেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

সিরাজদিখান থানার ওসি মো. মুজাহিদুল ইসলাম সুমন জানান, গলায় ফাঁস দিয়ে কিশোরী আত্মহত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

যুগান্তর

Leave a Reply