আড়িয়ল বিল জনপদে আনন্দ মিছিল

জনগণের মতের বিরুদ্ধে আড়িয়ল বিলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর স্থাপন করবেন না বলে বুধবার মন্ত্রীসভায় মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্য শোনার পর মুন্সীগঞ্জের আড়িয়ল বিল ঘেঁষা জনপদ আনন্দের জোয়ারে ভাসছে। শ্রীনগর ও সিরাজদীখান উপজেলার নিমতলী, হাঁসাড়া, বাড়ইখালী, ছনবাড়ি এলাকার গ্রামে গ্রামে নারী-পুরুষ-শিশুদের আনন্দ মিছিল বের হয়েছে। চলছে রঙের খেলা।

স্থানীয় বাসিন্দারা বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের খবরে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের কথা শোনামাত্র বাড়িঘর থেকে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন এবং স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলেন।

আড়িয়ল বিল রক্ষা কমিটির আহবায়ক শাহজাহান বাদল বলেন, বিমানবন্দর স্থাপনের সিদ্ধান্ত স্থগিত ঘোষণার বার্তা নিয়ে বুধবার বিকেল তিনটায় মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) শফিকুল ইসলাম শ্রীনগর এলাকায় পৌঁছেন। তিনি শ্রীনগর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপারের দপ্তরে তাৎক্ষণিক এক বৈঠকের আয়োজন করেন। সেখানে আড়িয়ল বিল রক্ষা কমিটির নেতারাসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ও সাংবাদিকদের সঙ্গে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময়ে বসেন।

পুলিশ সুপার গত ৩১ জানুয়ারি আড়িয়ল বিল রক্ষার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনার জের হিসেবে কোনোরকম পুলিশি হয়রানি না চালানোর ঘোষণা দেন। তিনি এলাকাবাসীকে আতঙ্কিত না হয়ে নিজ নিজ বাড়িঘরে স্বাভাবিক জীবন যাপনের জন্য অনুরোধ জানান।

মতবিনিময় বৈঠকে এসপি শফিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘ওই দিনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দায়ের হওয়া বিভিন্ন মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গ্রামবাসী কাউকে গ্রেপ্তার বা হয়রানি করা হবে না। তবে পুলিশ ক্যাম্প জ্বালিয়ে দেওয়া ও একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করার সঙ্গে যারা সরাসরি জড়িত ছিলেন তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে বাড়ইখালী এলাকায় আনন্দ মিছিলরত আড়িয়ল বিল রক্ষা কমিটির আহবায়ক শাহজাহান বাদল মোবাইল ফোনে বাংলানিউজকে বলেন, ‘এলাকার সর্বস্তরের মানুষ খুবই খুশি হয়েছেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতাও জানিয়েছেন। তবে আন্দোলনরত মানুষজনের নামে দায়ের করা সবা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি।’

বাড়ইখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন মাস্টার বাংলানিউজকে বলেন, ‘এ সরকার জনতার সরকার-জনতার বিজয় হওয়া মানে সরকারেরই বিজয়। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’ তিনি আবেগঘন অবস্থায় কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ‘অস্তিত্ব রক্ষার আন্দোলনে নিরাপরাধ বহু গ্রামবাসী গুলি খেয়েছেন-লাঠিপেটায় আহত হয়েছেন। তাদেরকে অভিনন্দন জানানোর মতো কোনো ভাষা আমার জানা নেই। সাংবাদিক ভাইদের প্রতিও আমরা গভীর কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ’

সাঈদুর রহমান রিমন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

[ad#bottom]

Leave a Reply