শ্রীনগরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত যুবলীগ নেতার ঢাকায় মৃত্যু

shahinআরিফ হোসেন: শ্রীনগরে তিনমাস আগে প্রথম দফায় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘাতকদের বিরুদ্ধে মামলা করেও বাঘড়া ইউপি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহীন (২৮) বাচঁতে পারলোনা। গত ৬ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ঘাতকরা দ্বিতীয় দফায় চলন্ত বাসে উঠে শাহিনের বুকে ও উরুতে ৩ রাউন্ড গুলি করে। দশ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে গতকাল শনিবার সাকাল সাড়ে নয়টার দিকে ঢাকার মোহাম্মদ পুরের কেয়ার হাসপাতালে শাহিনের মৃত্যু হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শাহিনের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়।

স্থানীয়রা জানায়, এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত বছরের ১৪ নভেম্বর বাঘড়া তালুকদার বাড়ী এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে শাহিনকে লক্ষ্য করে গুলি করে ম্যাগনেট বাহিনীর সদস্যরা। এতে শাহিন পিঠে গুলিবিদ্ধ হয়। পরে ঢাকা মিডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপারেশন করে শাহীনের শরীর থেকে গুলি বের করা হয়। এঘটনায় শাহিনের মা শাহানা বেগম বাদী হয়ে ১৮ জনকে আসামী করে শ্রীনগর থানায় মামলা করেন। পুলিশ এ মামলায় এখনো পযর্ন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীনগর থানার এসআই মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আসামীদের মধ্যে দুজন ছাড়া সবাই জামিনে রয়েছে।
shahin
শাহিনের চাচা আ: মালেক মেম্বার জানান, ঐ ঘটনার পর শাহিন সুস্থ হয়ে তাবলীগ জামায়াতে চলে যায়। গত ৬ মার্চ তাবলীগ জামায়েত শেষে ঢাকা থেকে বাঘড়া নিজ বাড়িতে ফেরার পথে আলামিন বাজারের ব্রীজের উপর আরাম পরিবহনের একটি যাত্রী বাহী বাসে উঠে বাধন, এমারত, সোহেল, রনি সহ আরো কয়েকজন শাহিনকে এলোপাথারি গুলি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। তাকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপালে ও পরে মোহাম্মদ পুরের কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার একদিন পর শাহিনের ফুফু কানন বেগম বাদী হয়ে ২৩ জনকে আসামী করে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায়ও পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। গতকাল শাহিনের মৃত্যু হয়। রাত সাড়ে সাতটার দিকে তাকে বাঘড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। ঐ এলাকায় এখন থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

শাহিন বাঘড়ার আলোচিত ফাইভ মার্ডার মালার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী সালাম ওরফে কটা সলামের ছেলে। সে দীর্ঘদিন জাপানে প্রবাসী ছিল। ঢাকা বসুন্ধরা মার্কেটে সু ওয়াল্ড নামে তার একটি ব্যবসা পতিষ্ঠান রয়েছে। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগে সে স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পরে।

অপর একটি সূত্র জানায়, কয়েকদিন আগে ম্যাগনেট গ্র“পের রাসেল নামের এক সদস্যকে অন্য এক মামলায় গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠায় পুলিশ। শাহিনের বাবা সালম জেলখানার ভেতরে রাসেলকে মারধর করে। রাসেল জামিনে বেরিয়ে আসার পর ম্যাগনেট বাহিনীর সদস্যরা ঐ ঘটনার বদলা হিসাবে শাহিনের উপর হামলা চালায়।

এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান বলেন আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

===================

শ্রীনগরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত যুবলীগ নেতার ঢাকায় মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত যুবলীগ নেতা শাহীন (২৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর কেয়ার হাসপাতালে মারা গেছেন। শনিবার সকাল ৮টায় মারা যাওয়ার পর লাশ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। নিহত শাহীন মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার বাঘরা ই্‌উনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।

শাহীনের চাচা আব্দুল মালেক বাংলানিউজকে জানান, গত ৬ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শ্রীনগর থানার আল-আমিন বাজার এলাকার একটি ব্রিজে স্থানীয় সোহেল, বাঁধন, এমারত ও রনিসহ প্রায় ১৫ জন দুর্বৃত্ত শাহীনকে গুলি করে ও পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে আহতবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৭ মার্চ তার স্বজনরা রাজধানীর কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মালেক আরো বলেন, শাহীন ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। তার বসুন্ধরা সিটিতে ‘সু ওয়ার্ল্ড’ নামে একটি জুতার দোকান রয়েছে।

শাহীনের বাবার নাম আব্দুস সালাম।

মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর হোসেন কেয়ার হাসপাতাল থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছেন।

তিনি বলেন, শাহীন দুর্বৃত্তদের গুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত হয়ে কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Leave a Reply