বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

জেলার পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় বন্যাপরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। পদ্মার পানি এখনও বিপদসীমার ১৯ সেমি ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভাগ্যকূল পয়েন্টে পদ্মার পানি বিপদসীমার ১৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে পদ্মার পানি কমতে শুরু করেছে। গতকাল কমেছে ভাগ্যকূল পয়েন্টে চার সেমি। নতুন কোনো এলাকা প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। পানিবন্দী আছে কয়েক হাজার মানুষ।

এখনও পানিবন্দী হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে পদ্মাতীরের শত শত পরিবার। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অব্যাহত রয়েছে নদীভাঙন। জেলার শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ি উপজেলার নদীতীরের বাড়ি ভাঙনের কবলে পড়েছে। শ্রীনগরের আড়িয়ল বিলে বিভিন্ন খাল দিয়ে পানি ঢুকে পুরো বিল এখন পানিতে টইটুম্বুর। মাটির নিচু রাস্তা পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুর্গত এলাকায় কিছু ত্রাণ দেওয়া হলেও প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম বলে অভিযোগ বানভাসি মানুষের।

দ্য রিপোর্ট

Leave a Reply