সিরাজদিখানে শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহার কুশপুত্তলিকা দাহ করলেন ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা

নাছির উদ্দিন: সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রদলের সদ্য ঘোষিত আংশিক কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল শেষ করে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লার কুশপুত্তলিকা পুড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় সিরাজদিখান বাজার থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক পরিদক্ষিণ করে উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে মিছিল শেষ করে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক শেখ মোহাম্মদ আব্দুর কুশপুত্তলিকা দাহ করে তারা।

এসময় বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের অভিযোগ করে বলেন, কোন ধরণের সম্মেলন ছাড়া, তৃণমূলের মতামত না নিয়েই এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই অবৈধ কমিটি আমরা মানি না মানবো না। ঘোষিত উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি বাতিল করে অবিলম্বে ত্যাগিদের দিয়ে নতুন কমিটি করারা দাবি জানান তারা।

সদ্য সাবেক সদস্য সচিব রিহান রহমান মৌসুমে সভাপতিত্বে বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করে, সদ্য সাবেক যুগ্ন আহবায়ক রিয়াদ মোল্লা, ফরহাদ হোসেন বুলেট, সদস্য অনিক ইসলাম, কবি ডিগ্রী কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ন আহবায়ক জিতু হাওলাদার, লতব্দী ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি শিহাব হোসেন, বালুচর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি কায়েস, মধ্যপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক অনিক ভূঁইয়া, কেয়াইন ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইদরান শেখ, চিত্রকোট ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শোয়েবসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

এসময় সাবেক সদস্য সচিব রিহান রহমান মৌসুম বলেন, সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটিকে পাশকাটিয়ে, কোনরকম যাচাই-বাছাই না করে যারা কখনো আন্দোলন সংগ্রামে ছিল না এমন লোক দিয়ে ঢাকায় একজনের ব্যবসায়িক অফিসে বসে যোগ্য, ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে বিবাহিত, অছাত্র, অযোগ্য ও ছাত্রলীগের কর্মী দিয়ে পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রদলের তৃনমুলের নেতৃবৃন্দ ঘৃণা ভরে প্রতাক্ষন করেছে। অনতিবিলম্বে এই পকেট কমিটি প্রত্যাহার না করিলে কঠিন পদক্ষেপ নেয়া হবে।

মুন্সিগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবুল হাশেম বলেন আমরা উপজেলা থেকে সিভি নিয়েছিলাম। সিভির যাচাই বাছাই করে আংশিক কমিটি দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply