টোকিওতে ইসরাইল দূতাবাসের সামনে বিশাল প্রতিবাদ ও ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শন

রাহমান মনি: নিরীহ ফিলিস্তিনিদের ঊপর দখলদার ইসরাইলের আগ্রাসন ও নির্বিচারে হত্যার প্রতিবাদে এবং ইসরাইলের সাথে চলমান সঙ্ঘাতে ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে আজ রোববার জাপানে বসবাসরত বিভিন্ন দেশের বিপুল সংখ্যক মুসলিম বিক্ষোভকারী টোকিওতে ইসরাইলি দূতাবাসের সামনে এক বিশাল প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন ।

জাপান পুলিশের পূর্বানুমতি নিয়ে ২৯ অক্টোবর রোববার যোহর নামাজ শেষে বেলা ১টায় টোকিওর চিয়োদা সিটিতে অবস্থিত ইসরাইল দূতাবাসের সামনে জাপান মুসলিম কমিউনিটির ব্যানারে সমাবেশের নিদিষ্ট সময় নির্ধারণ থাকলেও দুপুর থেকেই প্রবাসীরা জড়ো হ’তে শুরু করেন । জাপান মুসলিম কমিউনিটির ব্যানারে আয়োজন করা হলেও অন্যান্য ধর্ম্যালম্বী প্রবাসী এবং বিপুল সংখ্যক স্থানীয় জাপানিজদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো ।

প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে যোগদানকারী বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা ফিলিস্তিনি ও নিজ নিজ দেশের পতাকা নিয়ে সংহতি জানাতে দেখা গেছে। বিক্ষোভকারীরা স্লোগানে স্লোগানে ইসরাইলি বাহিনীর অবৈধ ও অমানবিক আচরণ এবং হামলার নিন্দা জানিয়ে ফিলিস্তিনের জনগণের প্রতি ভালোবাসা ও পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন ।

বিক্ষোভকারীদের সকলেই সমস্বরে আল-আকসা মসজিদের জন্য জীবন উৎসর্গ করতে প্রস্তুত আছেন বলে ঘোষণাও দেন। তারা গাজায় ইসরাইলি হামলাকে ‘গণহত্যা’ হিসাবে আখ্যা দেন।

বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন ভাষায় ‘ফিলিস্তিনকে মুক্ত করো’ নামাঙ্কিত পতাকা নিয়ে ‘ইন্তিফাদা বা গণজাগরণ দীর্ঘজীবী হোক’ বলে এ সময় স্লোগান দেয় তারা। বেশিরভাগ মানুষকে এ সময় ‘ফিলিস্তিনের সঙ্গে সংহতি’ ছাড়াও নানা প্ল্যাকার্ড বহন করতে দেখা যায়।

সমাবেশে বিক্ষোভ প্রদর্শন পূর্ব এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে প্রবাসী নেতৃবৃন্দ বলেন, নামাজ পড়া অবস্থায় আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ঢুকে ইসরাইলি পুলিশের বেধড়ক লাঠিপেটা, কাঁদানে গ্যাস এবং নির্বিচারে রাবার বুলেট ছুড়ে, বিমান হামলায় হাজার হাজার নিরীহ ফিলিস্তিনিকে হতাহত করে। যার অধিকাংশই নারী ও শিশু। আর এই হত্যাযজ্ঞে সমর্থন করে ইউরোপ আমেরিকা সহ পশ্চিমা কিছু দেশ। এমন কি ভারতও। বিক্ষোভকারীদের এসময় ভারত , ব্রিটেন , জার্মানি এবং আমেরিকার বিরুদ্ধেও স্লোগান দিতে দেখা যায় ।

তারা আরো বলেন, এ হামলা মানবতার বিরুদ্ধে। হাসপাতালে বর্বরোচিত বোমা হামলা তারই উৎকৃষ্ট উদাহরণ হয়ে থাকবে ।

জাপান পুলিশের ভাষ্য মোতাবেক সহস্রাধিক বিক্ষোভকারী আজকের বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নিয়ে থাকে।

বিক্ষোভ সমাবেশে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য এবং প্রবাসী মিডিয়া , জাপানি জাতীয় মিডিয়া সহ বিশ্ব মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়।

উল্লেখ্য চলমান পরিস্থিতি নিয়ে এর আগেও একাধিকবার বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে টোকিওতে এবং আগামীতেও হবে বলে জানা যায় ।

rahmanmoni@gmail.com

Leave a Reply