সিরাজদিখান: আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা

সিরাজদিখান উপজেলার হাজী গাঁও গ্রামের ব্রজলাল দাসের সন্তানদের ৬০ বছর যাবত ভোগদখলীয় জমিতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জবরদখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।


এ ব্যাপারে হাজী গাঁও ও ছোট শিকারপুর গ্রামের ২ জনকে অভিযুক্ত করে সিরাজদিখান থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। ওই জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। এর মধ্যে দেওয়ানি মামলা এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে আদালত উভয়পক্ষকে স্ব স্ব স্থানে থাকার নির্দেশ দেন।


এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী গোবিন্দ চন্দ্র দাস জানান, এখানে আমাদের মোট জমির পরিমাণ ২ একর ৩৭ শতাংশ। পৈতৃক সূত্রে এই জমি আমরা ৬০ বছর যাবত ভোগদখল করছি। কিন্তু কিছুদিন যাবত আমাদের জমিতে এসে স্থানীয় শ্রীবাস সরকার বৈদ্য ও শ্যামল চক্রবর্তী নামের দুই ব্যক্তিসহ কয়েকজন বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে এবং জোর করে শ্রমিক দিয়ে জমি পরিষ্কার করে দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। জমি পরিষ্কার করতে বাধা দিলে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে সিরাজদিখান থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু আইন অমান্য করে তারা অবৈধভাবে আমাদের জমি জবরদখলের চেষ্টা করছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় আমি তাদের নামে ফের সিরাজদিখান থানায় অভিযোগ করেছি।


এ বিষয়ে অভিযুক্ত শ্রীবাস সরকার বৈদ্যের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। এ ব্যাপারে শ্যামল চক্রবর্তীর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।


এ ব্যাপারে সিরাজদিখান থানার ওসি মো. মুজাহিদুল ইসলাম সুমন বলেন, উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের হাজী গাঁও গ্রামের ব্রজলাল দাসের সন্তানদের জমির বিষয়ে আদালতের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার কাগজ আমাকে দিয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.