টঙ্গীবাড়িতে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণ, যুবকের কারাদণ্ড

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায় মাহিন মৃধা নামের এক যুবককে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া আসামিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে আরও ২ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়।

রোববার (১২ মে) মুন্সীগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক ফাইজুন্নেছা এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিত আসামি টঙ্গীবাড়ি উপজেলার নশংকর গ্রামের জুয়েল মৃধার ছেলে।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১১ জুলাই ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ি থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৮ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। দীর্ঘ ৭ বছর পর যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে এ রায় দেন আদালত। অপরাধী মাহিন মৃধা শিশু থাকায় তাকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত।

চার্জশিটে বলা হয়, ভুক্তভোগী ওই শিশুকে ২০১৭ সালের ১০ জুলাই বিকেল ৫টার দিকে টঙ্গীবাড়ি উপজেলার নশংকর এলাকার খেলার মাঠ থেকে জোর করে বাগানে নিয়ে শিশুটির হাত বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে রক্তাক্ত অবস্থায় পানিতে ফেলে দেয়। ডোবায় পানি কম থাকায় শিশুটি প্রাণে বাচলেও মানসিক ও শারিরীকভাবে অসুস্থ হয়ে প্রথমে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি মো. লাবলু মোল্লা। তিনি এ রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

দেশ টিভি

Leave a Reply