সিরাজদিখানে মাটিকাটা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে ৯ জনের শরীরে টেঁটা

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে আধিপত্য বিস্তার ও মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ৯ জন টেঁটাবিদ্ধ হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে আরও ৬ জন।বুধবার সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের পূর্ব চান্দেরচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহকালে সালাউদ্দিন সালমান নামের এক সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ২৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, পূর্ব চান্দেরচর গ্রামের কামিজুদ্দিন কামু (৬০) ও একই এলাকার কালাইচান মাতব্বরের (৫৫) সমর্থকদের মধ্যে ফসলি জমির মাটি কাটার টাকার ভাগ-বাটোয়ারা ও আধিপত্য নিয়ে বিরোধ ছিল। এরই জের ধরে সকাল ৬টায় সংঘর্ষে জড়ায় দুপক্ষের লোকজন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান নেয় এবং ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এর আগে গত ২১ জুন উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছিল, ওই সংঘর্ষে ৪ জন টেঁটাবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়েছিল।

বালুচর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আওলাদ হোসেন সংঘর্ষের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমাদের দুই নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আলেকচান সজীব সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে আহত হয়েছেন, বর্তমান তিনি স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এছাড়া বেশ কয়েকজন টেঁটাবিদ্ধ হয়েছে বলে শুনেছি।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুজাহিদুল ইসলাম জানান, ফসলি জমির মাটি কাটার টাকা ভাগ-বাটোয়ারা আর আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মারামারি হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন টেঁটাবিদ্ধ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ২৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়েছে। সাংবাদিকের ওপর হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, এটা ভুল বোঝাবুঝি ছিল।

ঢাকা টাইমস

Leave a Reply